২০২১ সালে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ৩৯টি হলিউড সিনেমা

২০২১ সালে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ৩৯টি হলিউড সিনেমা

Spread the love
  • 408
    Shares

২০২০ সালে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল এমন মুভির তালিকার দিকে তাকালে আমরা একটা শিক্ষাই পাই। তা হলো যেকোন সময় সবকিছু বদলে যেতে পারে। হঠাৎই এলো করোনার থাবা, সিনেমা মুক্তির তারিখ গেল পিছিয়ে, প্রোডাকশনও বন্ধ হয়ে গেল। 

এছাড়া আরো আছে নানা চিন্তা। দর্শকরা কি আসলেই হলে যাওয়াকে নিরাপদ ভাববে? নাকি ওয়ার্নার ব্রোস এর মতো আরো স্টুডিও তাদের সিনেমাগুলো স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মে মুক্তি দেবে? 

গতবছর যেসব মুভিগুলোর জন্যে মানুষজন অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিলো তার বেশিরভাগই মুক্তি পাবে এবছর। 

সে মুভিগুলো কেমন করবে? মানুষ কিভাবে গ্রহণ করবে? 

তবে গত বছরের অভিজ্ঞতা থেকে বলা যায় যে আমরা যা ভাববো তার পুরোপুরি উল্টোটাও ঘটে যেতে পারে। চলুন চোখ বুলিয়ে এই ২০২১ সালে নিশ্চিতভাবে মুক্তি পাবে এমন ৩৯টি চলচ্চিত্রের দিকে। সাথে দেয়া হলো তাদের মুক্তি পাওয়ার তারিখও।

১. পিসেস অফ আ উম্যান (৭ই জানুয়ারী)

ভেনেসা কার্বি ইতোমধ্যেই মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন ‘দ্যা ক্রাউন’ এ তাঁর অনবদ্য পার্ফম্যান্সের মাধ্যমে। এই চলচ্চিত্রে তাঁর চরিত্র একজন শোকার্ত মায়ের (মার্থা), যাঁর বাচ্চা জন্মের কিছুক্ষণ পরেই মারা গেছে। এই শোকের মাঝেই তিনি ধাত্রীর বিরুদ্ধে আইনী লড়াইয়ে নামেন এবং ব্যর্থ বিবাহ পেছনে ফেলে জীবনের পথে এগিয়ে যেতে চেষ্টা করেন। 

২. দ্যা হোয়াইট টাইগার (২২শে জানুয়ারী) 

এটি মুক্তি পাবে নেটফ্লিক্সে। গত বছরের ‘প্যারাসাইট’ এর মতই শ্রেণী সংঘাত দেখানো হবে এখানে। গ্রামের স্বপ্নবাজ তরুণ হতে উদ্যোক্তা হওয়া বলরাম (আদর্শ গৌরব) ড্রাইভারের কাজ নেয় এক ধনী দম্পতির (রাজকুমার রাও এবং প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাস) বাসায়। কিছুদিন কাটার পর সে ঐ দম্পতির দুর্নীতি এবং হিংস্রতার ইতিহাস আবিষ্কার। তখন তার লক্ষ্য হয় একটাই : যেভাবেই হোক বেরোতে হবে এই পরিবার থেকে! 

৩. ম্যালকম অ্যান্ড ম্যারি (৫ই ফেব্রুয়ারি)

Malcolm & Marie (Feb. 5)

করোনার মধ্যেই পুরো শ্যুটিং সম্পন্ন হয়েছে এমন মুভিগুলোর একটি এটি। মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন ‘ইউফোরিয়া’ খ্যাত জেনডায়া এবং হলিউডের রাইজিং স্টার জন ডেভিড ওয়াশিংটন। এক ফিল্মমেকার এবং তার বান্ধবীর সংকটময় সম্পর্কের কাহিনী এই মুভির মূল উপজীব্য। 

৪. দ্যা মৌরিতানিয়ান (১৯শে ফেব্রুয়ারী)

এই মুভি অস্কারে ভালো করবে এমন একটা আভাস এখন থেকেই পাওয়া যাচ্ছে। মোহামেদ ওল্দ স্লাহিকে (তাহার রাহিম) কোন অভিযোগ ছাড়াই গুয়ান্তামো বে কারাগারে আটকে রাখা হয়। তাকে ন্যায়বিচার এনে দিতে কাজ করেন ২ জন অ্যাটর্নি  (জোডি ফস্টার, শাইলেন উডলি)। অন্যদিকে মিলিটারি প্রসিকিউটরের চরিত্রে অভিনয় করেছেন বেনেডিক্ট কাম্বারব্যাচ। 

৫. ইউনাইটেড স্টেটস ভার্সেস বিলি হলিডে  (২৬শে ফেব্রুয়ারী)

মুভিটি তৈরী করা হয়েছে ৪০ এর দশকের জ্যাজ শিল্পী বিলি হলিডের জীবনের কাহিনী নিয়ে। সে দশকের অন্যতম সেরা শিল্পী হলেও তাঁকে জীবন কাটাতে হয়েছে কষ্ট আর দারিদ্রের মধ্যে। সাথে ছিলো অত্যাচারী বয়ফ্রেন্ড। এছাড়াও হিংস্র এবং বর্ণবাদী এফবিআই ডিরেক্টর সবসময়ই তাড়া করতেন তাকে। মুভিতে বিলির চরিত্রে অভিনয় করেছেন রিদম অ্যান্ড ব্লুজ শিল্পী এন্ড্রা ডে।

৬. কামিং টু আমেরিকা (৫ই মার্চ) 

Eddie Murphy stars in COMING 2 AMERICA Photo Courtesy of Amazon Studios

১৯৮৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই সিরিজের ১ম মুভির সাংস্কৃতিক প্রভাব এখনও প্রবল। বহুল আকাঙ্ক্ষিত এই সিক্যুয়েলে দেখা যাবে আকিম (এডি মারফি) এবং সেমি (আর্সেনিও হল) তাদের জামুন্ডা প্যালেস থেকে বেরিয়ে আবারও আটলান্টিকের ওপারে যাবে। কারণ আকিম জানতে পেরেছে কুইন্সে তার হারিয়ে যাওয়া সন্তান আছে। 

৭. বুগি (৫ই মার্চ)

রেস্টুরেন্টার এডি হুয়াং অসাধারণ গল্প লেখার প্রতিভার প্রমাণ আগেই দিয়েছেন। এবার এলেন চলচ্চিত্র পরিচালনায়। বুগি তাঁর প্রথম মুভি। কাহিনী আবর্তিত হয়েছে এক এশিয়ান-আমেরিকান বিষ্ময় বালককে ঘিরে, যে এনবিএ তে খেলার স্বপ্ন দেখে। এতে বিষ্ময় বালকের প্রতিদ্বন্দ্বীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন সদ্য প্রয়াত র‍্যাপার পপ স্মোক। 

৮. রায়া অ্যান্ড দ্যা লাস্ট ড্রাগন (৫ই মার্চ)

ডিজনির সর্বশেষ থ্রিডি অ্যানিমেটেড ফিল্মটি মুক্তি পাবে ৫ই মার্চ৷ কাহিনী আবর্তিত হয়েছে এমন একটি দেশকে ঘিরে যেখানে মানবতা রক্ষায় ড্রাগনরা নিজেদেরকে বলি দিয়েছিলো। আবার ফিরে এসেছে মানবতার হুমকি সেই দৈত্যরা। এখন  রায়া এবং বেঁচে থাকা শেষ ড্রাগনকে পৃথিবী বাঁচানোর পথ খুঁজতে হবে। 

৯. দ্যা ট্রুফল হান্টার্স (৫ই মার্চ)

বনে বনে ঘুরে ঘুরে ট্রুফল (এক ধরণের ছত্রাক) খুঁজে বেড়ানোকে হয়তো অতটা আকর্ষণীয় মনে হয় না। কিন্তু এই বিষয়বস্তু নিয়েই বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে সাড়া ফেলে দিয়েছে দ্যা ট্রুফল হান্টার্স। অর্জন করে নিয়েছে রটেন টমাটোজে ১০০% ফ্রেসনেসও। এই ডকুমেন্টারিতে ক্যামেরা সাবজেক্টের পেছন পেছন ঘোরার পাশাপাশি অনুসন্ধানে সহায়তাকারী কুকুরের সাথে তার সম্পর্ককেও দেখায়। 

১০. দ্যা মেনি সেইন্টস অফ নিওয়ার্ক (১২ই মার্চ)

দ্যা সোপরানোজকে অনেকেই সবচেয়ে সেরা সিরিজ বলে মনে করে। এই সিরিজ শেষ হওয়ার ১৩ বছর পর সিরিজের নির্মাতা ডেভিড চেইস আসছেন এর প্রিক্যুয়েল নিয়ে। এবারের ঘটনাকাল ৬০ এবং ৭০ এর দশক। এই সময়ে ইতালিয়ান-আমেরিকান এবং আফ্রিকান-আমেরিকানদের মধ্যে সম্পর্ক কেমন ছিলো তা দেখানো হবে এখানে। 

১১. নো টাইম টু ডাই (২রা এপ্রিল) 

পঞ্চম এবং শেষবারের মত বন্ড রূপে হাজির হচ্ছেন ড্যানিয়েল ক্রেইগ। এছাড়াও কাস্টে আছেন অ্যানা ডি আরমাস এবং অস্কারজয়ী র‍্যামি মালেক। মালেক অভিনয় করবেন ভয়ংকর ভিলেন সাফিনের চরিত্রে। শোনা যাচ্ছে এই মুভিতেই লাশানা লিঞ্চকে নতুন জিরো জিরো সেভেন হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হবে। 

১২. বায়োজ (১৬ই এপ্রিল)

টম হ্যাঙ্কসের নতুন মুভি। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার আগেই এর শ্যুটিং শেষ হয়। কাহিনী এমন : দুনিয়া ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাওয়া ফিঞ্চ (হ্যাঙ্কস) তৈরী করেন একটি রোবট। তাঁর মৃত্যুর পর এটিই তাঁর পোষা কুকুরের দেখভাল করবে। বেঁচে থাকতে হলে যে কুকুরটির অবশ্যই রোবটটিকে বিশ্বাস করতে হবে সেটা ওকে বোঝাতে চান তিনি। 

১৩. লাস্ট নাইট ইন সোহো (২৩শে এপ্রিল) 

এডগার রাইটের টাইম ট্র্যাভেল ভিত্তিক সাইকোলজিক্যাল হরর মুভি। গল্প আবর্তিত হয়  এক উচ্চাকাঙ্ক্ষী ফ্যাশন ডিজাইনারকে ঘিরে। যে টাইম ট্র্যাভেল করে ষাটের দশকের লন্ডনে গিয়ে দেখা করে তার আইডল আকর্ষণীয়া গায়িকার সাথে। কিন্তু ফলাফল হয় ভয়াবহ। 

১৪. ব্ল্যাক উইডো (৭ই মে)

এভেঞ্জার হওয়ার আগে রাশিয়ান স্পাই হিসেবে কাজ করায় নাতাশা রোমানভের সাথে কিছু লোকে শত্রুতার সৃষ্টি হয়৷ এই অরিজিন স্টোরিতে স্কারলেট জোহানসন আবারও ব্ল্যাক উইডো চরিত্রে অভিনয় করবেন। মূলত সিভিল ওয়ারের পরের ঘটনা দেখানো হবে এবং নাতাশার ‘পরিবার’কেও দেখানো হবে। স্কারলেট ছাড়াও অভিনয় করেছেন ফ্লোরেন্স পাগ, রাচেল ওয়েইজ এবং ডেভিড হার্বোর। 

১৫. ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস নাইন (২৮শে মে)

যদি বিবর্ণ ২০২০ এ বড় বড় বিস্ফোরণ আর কার চেইস না দেখে আপনার মন খারাপ থাকে, তাহলে মন ভালো করে দিতে আসছে ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস ফ্র্যাঞ্চাইজির নবম কিস্তি। এবার পরিবার হবে আরো বড়। থাকবে ডম আর লেটির সন্তানও। আর ডমের ভাইয়ের শত্রুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন জন সিনা। 

১৬. ক্রুয়েলা (২৮শে মে)

এখন সময় ভিলেন থেকে নায়কে পরিণত হওয়া নারী চরিত্রের। মার্গো রবির হার্লি কুইন এর বড় প্রমাণ৷ এবার এমা স্টোন আসছেন ডিজনি ভিলেন ক্রুয়েলা চরিত্রে, যে একসময় বেশকিছু ডালমেশিয়ান কুকুরকে অপহরণ করে। এমা স্টোন তরুণ বয়সের ক্রুয়েলা চরিত্রে অভিনয় করবেন৷ মুভিটি মুক্তি পাবে ডিজনি প্লাসে। 

১৭. ইন দ্যা হাইটস (১৮ই জুন)

এটি ২০০৮ সালে টনি অ্যাওয়ার্ড জেতা একটি মিউজিক্যালের সিনেম্যাটিক রুপ। এটির লেখক মিরান্ডা বেড়ে উঠেন বহু সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্য পরিপূর্ণ একটি এলাকায়৷ এখানে নিউ ইয়র্ক র‍্যাপ, সালসা ড্যান্সিং ইত্যাদি নাচের সেটের মাধ্যমে অভিবাসন, সংস্কৃতি, জেনারেল গ্যাপ, জেন্ট্রিফিকেশন এবং ভালোবাসার গল্প বলা হয়েছে। পরিচালনা করেছেন জন এম. চু এবং প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন উসনাভি। 

১৮. লুকা (১৮ই জুন)

পিক্সারের নতুন মুভি। কাহিনী আবর্তিত হয় লুকা নামক এক বালককে ঘিরে, যে জেলাটো খাচ্ছে আর খুব সুখে উপভোগ করছে গ্রীষ্মকাল। আলবার্তো নামে নতুন এক বন্ধুও বানিয়েছে। কিন্তু আলবার্তো আসলে সমুদ্রের একটি দৈত্য। ফাইন্ডিং নিমো বা ডোরির মত এখানেও হয়তো বর্ণিল জলজ পরিবেশ দেখানো হবে। 

১৯. ব্লু বেও (২৫শে জুন)

পরিচালক জাস্টিন চনের আগের মুভি গুক সমালোচকদের বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে। এবার তার গল্প এক কোরিয়ান লোককে (অ্যান্টোনিও) নিয়ে। যে লুইজিয়ানায় এসে সংসার পেতেছে। কিন্তু সে হঠাৎই জানতে পারে যে তাকে খুব শীঘ্রই ফেরত পাঠানো হবে। অ্যালিসিয়া ভিকান্দার অভিনয় করেছেন তার স্ত্রীর চরিত্রে। 

২০. জোলা (৩০শে জুন)

জোলা নামে ডেট্রোইটের এক খাদ্য পরিবেশিকা একবার টুইটারে নগ্নতা, যৌনতা এবং অস্ত্রে ভরপুর এক রোড ট্রীপের বর্ণনা দেয়। সেই থেকেই মানুষজন এটা নিয়ে মুভি চাচ্ছিলো। অবশেষে ৫ বছর পর এলো সেই মুভি। 

২১. টপ গান ম্যাভেরিক (২রা জুলাই)

৩৪ বছরের বিশাল বিরতির পর এলো টপ গানের সিক্যুয়েল। টম ক্রুজ আর ভ্যাল কিলমার আগের চরিত্রগুলোতেই আছেন। নতুন যুক্ত হয়েছেন মাইলস টেলার, জেনিফার কনেলি এবং জন হ্যাম৷ আবার তৈরী হন রোমাঞ্চকর ডগফাইট দেখতে! 

২২. শ্যাং চি অ্যান্ড দ্যা লেজেন্ড অফ দ্যা টেন রিংস (৯ই জুলাই)

এশিয়ান সুপারহিরো নিয়ে মার্ভেলের প্রথম মুভি। মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন সিমু লিউ। মুভিতে শ্যাং চি কে লড়তে দেখা যাবে রহস্যময় টেন রিংস ক্রাইম সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে। এটি হবে মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সের ২৫তম মুভি।।

২৩. বার্ব অ্যান্ড স্টার গো টু ভিস্তা ডেল মার (১৬ই জুলাই)

NEW YORK, NY – APRIL 28: Actors Kristen Wiig and Annie Mumolo accept an award onstage at The Comedy Awards 2012 at Hammerstein Ballroom on April 28, 2012 in New York City. (Photo by Theo Wargo/Getty Images)

ব্রাইডসমেইডসের পর আবারও একত্রিত হলেন ক্রিস্টেন উইগ এবং অ্যানি মামোলো। এবার তাদের দেখা যাবে মিডওয়েস্টের ছোট্ট শহরের দুই বন্ধুর চরিত্রে, যারা প্রথমবারের মত নিজেদের শহর ছাড়ে। 

২৪. স্পেইস জ্যাম : আ নিউ লেগেসি (১৬ই জুলাই)

লেব্রন জেমস বাস্কেটবল খেলা শুরু করার পর থেকেই মাইকেল জর্ডানের সাথে তাঁর তুলনা হচ্ছে। জেমস কি মাইকেল থেকে সেরা কিনা সে বিতর্ক পরে হবে, তবে মাইকেলের সাংস্কৃতিক উত্তরসূরি হিসেবে তিনি অভিনয় করতে যাচ্ছেন এই মুভিতে। এখানে দেখা যাবে নিজের দল এলএ লেকার্সের সদস্যদের বাদ দিয়ে লুনি টুনসের দলে যোগ দিচ্ছেন তিনি। 

২৫. ডিপ ওয়াটার (১৩ই আগস্ট)

প্যাট্রিসিয়া হাইস্মিথের উপন্যাস থেকে ইতিমধ্যেই তৈরী হয়েছে দুটি অসাধারণ মুভি৷ এবার তাঁর উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত মুভিতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন বেন অ্যাফ্লেক এবং অ্যানা ডি আরমাস। গল্পের কাহিনী আবর্তিত হয় এক দম্পতিকে ঘিরে, যারা সম্পর্কের পুরনো টান ফিরিয়ে আনতে পরস্পরের সাথে ভয়ংকর মাইন্ডগেমে মেতে ওঠেন৷ 

২৬. ক্যান্ডিম্যান (২৭শে আগস্ট)

নিয়া ডি কস্তা নিয়ে আসছেন ১৯৯২ সালের ক্লাসিক ক্যান্ডিম্যানের সিক্যুয়েল। এতে প্রোডিউসার এবং কো-রাইটার হিসেবে থাকছেন জর্ডান পিল। এইবার কাহিনীতে দেখানো হবে বর্তমানের অবস্থাকে। ভেঙ্গে যাওয়া টাওয়ারগুলোকে বদলে বানানো হয়েছে কন্ডো। এখানে বসবাস করতে আসেন একজন শিল্পী, যে ছোটবেলায় ক্যান্ডিম্যানের ভয়ে ভীত ছিলো। এখানে এসে তার মনে হয় এখনো ক্যান্ডিম্যানের ছায়া রয়ে গেছে এই জায়গায়। 

২৭. ডুন (১লা অক্টোবর)

ফ্র্যাঙ্ক হার্বাটের সাই-ফাই সাগাকে নতুন রুপ দিচ্ছেন ডেনিস ভিলোনভ। আছেন অস্কার আইজ্যাক, টিমোথি ক্লেমেট, জেনডায়া এবং জেসন মমোয়ার মত তারকারা। এটি একইসাথে সিনেমা হল এবং এইচবিও ম্যাক্সে মুক্তি পাবে। 

২৮. দ্যা লাস্ট ডুয়েল (১৫ই অক্টোবর)

এরিক জ্যাগারের বই অবলম্বনে রিডলি স্কটের নতুন ঐতিহাসিক ড্রামা৷ এর গল্প আবর্তিত হয়েছে ফ্রান্সে আইনগতভাবে অনুমোদিত লাস্ট ডুয়েল লড়াকে ঘিরে। বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন বেন অ্যাফ্লেক, ম্যাট ডেমন, অ্যাডাম ড্রাইভার এবং জোডি কামার। 

২৯. দ্যা ইটারনালস (৫ই নভেম্বর)

মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সের চতুর্থ ফেইজের ক্যারেক্টারদের আগমণ ঘটবে এখানে। অমর এলিয়েনরা, যারা বহু বছর ধরে পৃথিবীতে লুকিয়ে আছে; তারা সামনে আসবে এবং ডেভাইয়ান্টদের হাত থেকে পৃথিবীকে রক্ষা করতে ঐক্যবদ্ধ হবে। তারকায় ঠাসা এই মুভি দেখতে তর সইছে না কারোরই। 

৩০. মিশন : ইম্পসিবল সেভেন (১৯শে নভেম্বর)

দীর্ঘদিন ধরে চলা এই ফ্র্যাঞ্চাইজির ৭ম কিস্তি। ইথান হান্ট চরিত্রে বরাবরের মতই আছেন টম ক্রুজ। এছাড়া পরিচিত মুখ সাইমন পেগ, ভিং রামেস এবং ভেনেসা কার্বিকেও দেখা যাবে। আসবে কিছু নতুন চরিত্রও। সিরিজের ৮ম কিস্তিও চলে আসবে শীঘ্রই। 

৩১. এনক্যান্টো (২৪শে নভেম্বর)

পিক্সারের অ্যানিমেটেড মিউজিক্যাল। গল্প একটি কলম্বিয়ান ঐন্দ্রজালিক পরিবারকে নিয়ে। 

৩২. ওয়েস্ট সাইড স্টোরি (১০ই ডিসেম্বর)

আবারও ফিরে আসছে বিখ্যাত ব্রডওয়ে মিউজিক্যাল এবং ১৯৬১ সালের ক্লাসিক মুভির গল্প। পরিচালনায় আছে স্টিভেন স্পিলবার্গ। অ্যানসেল এলগর্ট এবং রাচেল জিগলারকে দেখা যাবে মুখ্য চরিত্রে। চলবে নাচের তালে রাস্তায় নিয়ন্ত্রণ স্থাপনের লড়াই। 

৩৩. দ্যা ম্যাট্রিক্স ফোর (২২শে ডিসেম্বর) 

ম্যাট্রিক্স : রেভেলুশন্সের মাধ্যমে ট্রিলজি শেষ করার পর পরিচালক আর আগ্রহ দেখান নি এই সিরিজের ব্যাপারে৷ অনেক বছর পর এবছর আবার মুক্তি পেতে যাচ্ছে ম্যাট্রিক্সের রিবুট। কিয়ানু রিভস আর ক্যারি-অ্যান মস আছেন আগের চরিত্রগুলোতেই। পরিচালনায়ও দেখা যাবে সেই লানা ওয়াচোস্কিকে৷ একযোগে মুক্তি পাবে হল এবং এইচবিও ম্যাক্সে। 

৩৪. ব্যাবিলন (২৫শে ডিসেম্বর)

ড্যামিয়েন চ্যাজেল আসছেন লা লা ল্যান্ডের ফলো আপ নিয়ে৷ এতে প্রেক্ষাপটে থাকবে ১৯২০ এর দশকের হলিউড, নির্বাক চলচ্চিত্র থেকে সবাক চলচ্চিত্রে পদার্পণ দেখানো হবে। কিছুদিন আগে এমা স্টোন সরে যান এই প্রজেক্ট থেকে৷ হয়তো মার্গো রবিকে নেওয়া হবে তার বদলে। ব্র্যাড পিট থাকছেন এই পেরিওডিক মুভিতে। 

৩৫. ফলস পজিটিভ (এখনো মুক্তির দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয় নি)

সন্তানহীন এক দম্পতি যায় ফার্টিলিটি ডাক্তারের কাছে। অবশেষে একসময় স্ত্রী গর্ভধারণ করেন। কিন্তু ডাক্তারের আচরণকে রহস্যজনক মনে হয় তার। এবং তিনি এই রহস্য উদঘাটনে সচেষ্ট হন। অভিনয় করেছেন জাস্টিন থেরক্স, ইলানা গ্লেজার এবং পিয়ার্স ব্রসনান। এটিতে আবার সিনেমা পরিচালক হিসেবে গ্লেজারের অভিষেক ঘটবে। 

৩৬. দ্যা ফ্রেঞ্চ ডিসপ্যাচ (এখনো মুক্তির দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয় নি)

এই ড্র্যামেডি হলো ওয়েস অ্যান্ডারসনের ১০ম ফিচার ফিল্ম এবং ১ম সত্যিকারের অ্যান্থোলজি ফিল্ম৷ তাঁর অন্যান্য মুভিগুলোর মতো এটিও তারকায় ঠাঁসা। এই মুভির মাধ্যমে অ্যান্ডারসন মাল্টিভার্সে যুক্ত হলেন টিমোথি ক্লেমেট, বোনাসিও ডেল টোরো, এলিজাবেথ মস এবং জেফ্রি রাইট। এছাড়া বিল মারে, ওয়েন উইলসন, এড্রিয়েন ব্রডি, টিলডা সুইনটন এবং ফ্রান্সিস ম্যাকডারমান্ডের মত পরিচিত মুখরা তো আছেনই। 

৩৭. গৌস্টবাস্টার্স : আফটারলাইফ (এখনো মুক্তির দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয় নি)

৮০’র দশকের ব্লকবাস্টার গৌস্টবাস্টার্সের সিক্যুয়েল। থাকবেন ১ম গৌস্টবাস্টার্সরা; বিল মারে, ড্যান আইকরয়েড এবং এর্নি হাডসন। আর এযুগের গৌস্টবাস্টার্স হিসেবে দেখা যাবে পল রাড, ক্যারি কুন, ফিন উল্ফহার্ড এবং ম্যাকেনা গ্রেসকে৷ ওকলাহোমায় প্যারানরমাল ফোর্সের বিরুদ্ধে লড়তে দেখা যাবে তাঁদের৷ 

৩৮. জুডাস অ্যান্ড দ্যা ব্ল্যাক মেসাইয়াহ (এখনো মুক্তির দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয় নি)

ষাটের দশকের শেষের দিকে একজন ক্যারিশম্যাটিক এবং কার্যকরী নেতা হিসেবে ফ্রেড হ্যাম্পটনের উত্থান ঘটে ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টিতে। তাঁর ইচ্ছা ছিলো বর্ণবাদ এবং হিংস্রতায় পরিপূর্ণ শিকাগোতে শান্তি আনা৷ কিন্তু তাঁর ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তার ফলে এফবিআই তাঁকে সন্দেহ করে। ফলে একজন গাড়ি ছিনতাইকারীকে নিয়োগ করা হয় তাঁর কাছাকাছি যেতে এবং খবরাখবর পাচার করতে। অভিনয় করেছেন শাকা কিং এবং ড্যানিয়েল কালুইয়া। 

৩৯. দ্যা উম্যান ইন দ্যা উইন্ডো (এখনো মুক্তির দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয় নি)

অ্যামি অ্যাডামস এবং জুলিয়ান মুর দুজনে মিলে মোট ১১টি অস্কার নমিনেশন পেয়েছেন৷ এবার তাঁদের দেখা যাবে একই মুভিতে। অ্যামি অ্যাডামসের অ্যানা নামক চরিত্রটি অ্যাগোরাফোবিক এবং ড্রাগ অ্যাডিক্ট। তার সাথে বন্ধুত্ব হয় প্রতিবেশী জেইনের (জুলিয়ান মুর)। কিছুদিন পর অ্যানা দেখে জেইনকে প্রচন্ড মারধোর করা হচ্ছে। পুলিশে জানানো হলে দেখা যায় কেউই তাকে বিশ্বাস করছে না৷ এমনকি এখন যে জেইনকে দেখছে সেই জেইন আর আগের জেইনও যেন একই মানুষ নয়। মুভিটি মুক্তি পাবে নেটফ্লিক্সে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *