ঘরে বসে কীভাবে আপনার দাঁত সাদা করবেন

ঘরে বসে কীভাবে আপনার দাঁত সাদা করবেন

Spread the love
  • 2
    Shares

দাঁত শরীরের একটি বিশেষ অংশ। খাবার চাবাতে, কাটতে, ও টুকরো করতে দাঁতের ভূমিকা অপরিসীম। দাঁত হলো দেহের সব চাইতে শক্ত অঙ্গ। দাঁতের একটু অযত্ন হলেই পড়তে হয় বিভিন্ন সমস্যায়। তাই সঠিক সময়ে দাঁত এর যত্ন নেওয়া উচিৎ। আমেরিকান একাডেমি অব কসমেটিক ডেন্টিস্ট্রির (AACD) একটি গবেষনা কেন্দ্রে দেখা গেছে, একটি সুন্দর হাসি কিংবা হাসির পরিবর্তন এর জন্য যা সবচেয়ে বেশী জরুরী, তা হচ্ছে সাদা দাঁত। একটি গবেষণার প্রতিবেদনে প্রাকৃতিক ভাবে দাঁত সাদা করার অনেকগুলো উপায়ের কথা বলা হয়েছ (AACD) এ। ঝকঝকে সাদা দাঁত কে না পছন্দ করে। দাঁত সাদা থাকলে প্রাণ ভরে হাসতেও ভালো লাগে। আসুন জেনে নেই দাঁত ঝকঝকে সাদা করার কিছু অসাধারণ উপায় বা কৌশল।

লেবুর রস: লেবুর রস দাঁত সাদা করতে বিশেষ কার্যকরী। লেবু প্রায় সব বাড়িতেই কম বেশী থাকে। অনেকের বাড়িতে লেবুর গাছও থাকে। যদি না থাকে তাহলে সহজেই বাজারে লেবু কিনতে পাওয়া যায়। লেবু দিয়ে দাঁত সাদা করতে আপনাকে প্রথমে এক চিমটি সাদা খাবার লবন নিয়ে তার মধ্যে কয়েক ফোটা লেবুর রস দিয়ে দাঁত ঘষতে হবে। দেখবেন দাঁত ঝকঝকে সাদা হয়ে গেছে। এছাড়াও লেবুর খোঁসা দিয়ে দাঁত ঘষলে ও দাঁত সাদা হয়।

পেয়ারা পাতা: পেয়ারা পাতা দাঁতের মহাঔষধ। সকালে ঘুম থেকে উঠে পেয়ারা পাতা দিয়ে দাঁত ঘষলে দাঁত হয় মজবুত ও ঝকঝকে সাদা। এটি শুধু দাঁতকে সাদাই করেনা দাঁতের কোনো জটিল সমস্যা থাকলেও তার সমাধান করে।

কমলার খোঁসা: কমলায় রয়েছে ভিটামিন সি যা দাঁতের গঠন এ সহায়তা করে। কমলার খোঁসা দিয়ে দাঁত ঘষলে দাঁত হয় ঝকঝকে সাদা ও মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়। তাছাড়া দাঁতকে শক্তিশালী করতে কমলার খোসার বিকল্প নেই।

বেকিং সোডা: দাঁত সাদা করতে বেকিং সোডা খুবি কার্যকর। পেস্ট এর সাথে বা টুথ পাউডার এর সাথে বেকিং সোডা মিশিয়ে দাঁত ব্রাশ করলে দাঁত হয় উজ্জ্বল ঝকঝকে সাদা। এই পদ্ধতিতে আপনি দিনে দুই বার ব্রাশ করে নিলে ভালো ফল পাওয়া যায়। সকালে ঘুম থেকে উঠে ও রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে এটি দিয়ে ব্রাশ করলে ভালো ফল পাওয়া যায়।

গ্রীন-টি: গ্রীন- টি তে প্রচুর পরিমান ফ্লুরাইড থাকে এবং এটি অ্যান্টি-অ্যাসিডিক হওয়ার কারণে দাঁতে সহজে হলুদ রং পরতে দেয় না। হলুদ রং এর কারণে দাঁতের সাদা উজ্জ্বলতা নস্ট হয় তাই দাঁত কে ঝকঝকে সাদা রাখতে গ্রীন-টি দিয়ে দাঁত ঘষতে হবে। পারলে কুলিকুচি করে নেবেন তাহলে দাঁতের ভেতর অবদি পৌঁছাবে।

এক্টিভেটেড কাঠের কয়লা: আগেকার যুগে দাঁত সাদা করার জন্য এই প্রাকৃতিক উপাদান এক্টিভেটেড কাঠের কয়লা দিয়ে দাঁত ঘষে পরিষ্কার ও ঝকঝকে করা হতো। এটি দাঁতকে ভেতর থেকে সরাসরি সাদা করে। এতে রয়েছে অক্সিজেন ও ক্যালসিয়াম ক্লোরাইড যা দাঁতের ক্ষয় রোধ করে এবং সরাসরি দাঁত সাদা করার এজেন্ট হিসেবে কাজ করে।

ভিনেগার: সকলে ভাবেন যে ভিনেগার শুধু মাত্র খাবার বা স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয় কিন্তু অনেকেই জানেন না যে এটি দাঁতের জন্য খুবি উপকারী একটি উপাদান। পেস্ট এর সাথে কয়েক ফোটা ভিনেগার নিন (হোয়াইট ভিনেগার/আপেল স্লাইড ভিনেগার) এর পর ব্রাশ করুন। কিছুদিন ব্যাবহার করার ফলে এর চমৎকারী দেখতে পাবেন। চাইলে মাউথ ওয়াস এর মতো করে কুলিকুচি করে নিতে পারেন, এতে আপনার মুখের ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস হবে এবং দাঁত হবে মজবুত ও ঝকঝকে সাদা।

সুতরাং দাঁত নিয়ে আর দুশ্চিন্তা নয়, উপরের যে কোনো একটি উপায় বেঁচে নিয়ে আপনার দাঁতের পরিচর্যা করুন। মনে রাখবেন একটি সুন্দর হাসি মনের ভাব প্রকাশ করে। আর তাছাড়া শরীর সুস্থ রাখতে হলে হাসির বিকল্প নেই। তাই দাঁত যদি হয় ঝকঝকে সাদা হাসতে নেই কোনো মানা।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *